Instanotes

এক কথায় প্রকাশ/ বাক্যের সংকোচন (পার্ট ২)

যোগ্য

  1. যা চিবিয়ে খাবার যোগ্য – চর্ব
  2. যা চেটে খাবার যোগ্য – লেহ্য
  3. যা চুষে খাবার যোগ্য – চূষ্য
  4. যা পান করার যোগ্য – পেয়
  5. যা পাঠ করিবার যোগ্য – পাঠ্য
  6. ঘ্রাণের যোগ্য – ঘ্রেয়
  7. যা নিন্দার যোগ্য নয় – অনিন্দ্য
  8. নৌ চলাচলের যোগ্য – নাব্য
  9. প্রশংসার যোগ্য – প্রশংসার্হ
  10. ঘৃণার যোগ্য – ঘৃণার্হ / ঘৃণ্য
  11. যা ক্রয় করার যোগ্য – ক্রেয়
  12. যা খাওয়ার যোগ্য – খাদ্য
  13. জানিবার যোগ্য – জ্ঞাতব্য
  14. বরণ করিবার যোগ্য – বরেণ্য
  15. ক্ষমার অযোগ্য – ক্ষমার্য
  16. যা অন্তরে ঈক্ষণ যোগ্য – অন্তরিক্ষ
  17. স্মরণের যোগ্য – স্মরণার্হ
  18. যা বিক্রয় করার যোগ্য – বিক্রেয়
  19. রন্ধনের যোগ্য – পাচ্য
  20. আরাধনা করিবার যোগ্য – আরাধ্য
  21. ক্ষমার যোগ্য – ক্ষমার্হ
  22. মান-সম্মান প্রাপ্তির যোগ্য – মাননীয়
  23. ধন্যবাদের যোগ্য – ধন্যবাদার্হ
  24. ফেলে দেবার যোগ্য – ফেলনা

জন্ম

  1. দুবার জন্মে যা – দ্বিজ
  2. জন্মে নাই যা – অজ
  3. পঙ্কে জন্মে যা – পঙ্কজ
  4. যে ভূমিতে ফসল জন্মায় না – ঊষর
  5. শুভক্ষণে জন্ম যার – ক্ষণজন্মা
  6. অনুতে বা পশ্চাতে / জন্মেছে যে – অনুজ
  7. সরোবরে জন্মায় যা – সরোজ
  8. অগ্রে জন্মেছে যে – অগ্রজ
  9. যে জমিতে দুবার ফসল জন্মে – দো-ফসলি
  10. যে শিশু আটমাসে জন্মগ্রহণ করেছে – আটাসে
  11. পিতার মৃত্যুর পর জন্ম হয়েছে যে সন্তানের – মরণোত্তর জাতক
  12. যে জমির উৎপাদন শক্তি নেই – অনুর্বর
  13. যে সমাজের (বর্ণের) অন্তদেশে জন্মে – অন্ত্যজ
  14. পূর্বজন্মের কথা স্মরণ আছে যার – জাতিস্মর

দিন

  1. দিন ও রাতের সন্ধিক্ষণ – গোধূলি
  2. দিনের পূর্ব ভাগ – পূর্বাহ্ণ
  3. দিনের মধ্য ভাগ – মধ্যাহ্ন
  4. দিনের অপর ভাগ – অপরাহ্ন
  5. দিনের সায় (অবসান) ভাগ – সায়াহ্ন
  6. প্রায় প্রভাত হয়েছে এমন – প্রভাতকল্প
  7. দিনের আলো ও সন্ধ্যার আলোর মিলন – গোধূলি

রাত

  1. রাত্রির প্রথম ভাগ – পূর্বরাত্র
  2. গভীর রাত্রি – নিশীথ
  3. রাত্রির মধ্য ভাগ – মহানিশা
  4. রাত্রিকালীন যুদ্ধ – সৌপ্তিক
  5. রাত্রির শেষ ভাগ – পররাত্র
  6. রাতের শিশির – শবনম
  7. রাত্রির তিন ভাগ একত্রে – ত্রিযামা

গাছ

  1.  যে গাছে ফল ধরে, কিন্তু ফুল ধরে না – বনস্পতি
  2. একবার ফল দিয়ে যে গাছ মারা যায় – ওষধি
  3. যে গাছ অন্য গাছকে আশ্রয় করে বাঁচে – পরগাছা
  4. যে গাছ কোনো কাজে লাগে না – আগাছা
  5. ফল পাকলে যে গাছ মারা যায় – ওষধি
  6. যে গাছ থেকে ঔষধ তৈরি হয় – ঔষধি

আপন

  1. আপনাকে হত্যা করে যে – আত্মঘাতী
  2. আপনাকে ভুলে থাকে যে – আত্মভোলা
  3. যার প্রকৃত বর্ণ ধরা যায় না – বর্ণচোরা
  4. আত্মার সম্বন্ধীয় বিষয় – আধ্যাত্মিক
  5. আপনার বর্ণ লুকায় যে – বর্ণচোরা
  6. আপনাকে কেন্দ্র করে যার চিন্তা – আত্মকেন্দ্রিক
  7. যে আপনাকে কৃতার্থ মনে করে – কৃতার্থম্মন্য
  8. আত্মিক আপনাকে সর্বস্ব ভাবে যে – আত্মসর্বস্ব
  9. আপনাকে অত্যন্ত হীন বলিয়া ভাবে যে – হীনমন্য
  10. আপনাকে যে পণ্ডিত মনে করে – পণ্ডিতম্মন্য

সকল

  1. সকলের জন্য প্রযোজ্য – সর্বজনীন
  2. সকলের জন্য মঙ্গলকর – সর্বজনীন
  3. সকলের জন্য অনুষ্ঠিত – সার্বজনীন
  4. যিনি সর্বত্র ব্যাপিয়া থাকেন – সর্বব্যাপক
  5. সর্বজন সম্বন্ধীয় – সার্বজনীন
  6. যিনি সব কিছুই জানেন – সর্বজ্ঞ
  7. সমস্ত পদার্থ ভক্ষণ করে যে – সর্বভুক
  8. সর্বজনের হিতকর – সর্বজনীন
  9. সবকিছু গ্রাস করে যে – সর্বগ্রাসী
  10. বিশ্বজনের হিতকর – বিশ্বজনীন

গমন

  1. বাহুতে ভর করে চলে যে – ভূজঙ্গ
  2. সর্বত্র গমন করে যে – সর্বগ
  3. লাফিয়ে চলে যে – প্লবগ (ব্যাঙ / বানর)
  4. আকাশে গমন / বিচরণ করে যে – বিহগ (পাখি)
  5. ভুজের সাহায্যে চলে যে – ভুজঙ্গ / ভুজগ
  6. যে পা দিয়ে চলে না – পন্নগ (সর্প)
  7. যে গমন করে না – নগ (পাহাড়)
  8. যে উরস (বক্ষ) দিয়ে হাঁটে – উরগ (সর্প)
  9. যে সর্বত্র গমন করে – সর্বগ
  10. ইতস্তত গমনশীল বা সঞ্চরণশীল – বিসর্পী
  11. বুকে হেঁটে গমন করে যে – উরগ (সাপ)
  12. ত্বরিত গমন করতে পারে যে – তুরগ (ঘোড়া)
  13. জলে ও স্থলে চরে যে – উভচর
  14. যে ভুজের সাহায্যে (এঁকে বেঁকে ) চলে – ভুজগ / ভুজঙ্গ (সৰ্প)

হাত

  1. হাতের কব্জি – মণিবন্ধ
  2. হাতের দ্বিতীয় আঙুল – তর্জনী
  3. হাতের চতুর্থ আঙুল – অনামিকা
  4. হাতের তেলো বা তালু – করতল
  5. হাতের তৃতীয় আঙুল – মধ্যমা
  6. হাতের পঞ্চম আঙুল – কনিষ্ঠা
  7. হাতের প্রথম আঙুল (বুড়ো আঙুল) – অঙ্গুষ্ঠ
  8. হাতের কব্জি থেকে আঙুলের ডগা পর্যন্ত – পাণি
Share

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *